ওড়ো অবাধে হয়ে অবাধ্য
        অর্জিত হোক যা কিছু অসাধ্য...

1. ব্যুফে খাওয়ার সর্বপ্রথম অলংঘনীয় যে নিয়ম সেটি হল সংগী নির্বাচন। খাদক ভাইদের ক্ষেত্রে একটি সতর্কীকরন হল গার্লফ্রেন্ড নিয়া কখনো ব্যুফে খেতে যাবেন না। যদি আপনার গার্লফ্রেন্ড ভোজন প্রেয়সী না হয়। তা নাহলে একটূ পর পর বলবে, এই তুমি এরকম অসভ্যের মতন খাচ্ছ কেন? ঐ লোকটা আমাদের দিকে এভাবে তাকায় আছে কেন? আমরা কি বেশি খাচ্ছি নাকি? ইত্যাদি আজাইরা প্যাচালে আপনার কনসেন্ট্রেশনের মায়রে বাপ করে ছেড়ে দিবে। বেস্ট অপশন হলো নিজের চেয়ে বড় খাদক কে সংগী হিসেবে নির্বাচন করা। এতে প্রতিযোগিতার আবেশ তৈরি হয় এবং বেশি খাওয়া যায়।

 

2. “খাওয়ার আগে মাইরের পিছে”, এইটা ভুলা যাবেনা… ঢাকার ব্যুফে রেস্টুরেন্ট গুলির লান্চ বা ডিনারে নির্দিস্ট সময়সীমা থাকে। সাধারনত ২ থেকে ৩ ঘন্টা সময় বেধে দেয়া থাকে। এক্ষেত্রে সময় শুরু হবার আধা ঘন্টা আগে গিয়ে জায়গা দখল করতে হবে। প্রশ্ন উঠতে পারে আধা ঘন্টা কি করবেন। এসময় খালি নাকের ব্যবহার করতে হইবে। আপনার নস্ছাদ্র দিয়া চোষ্য চর্ব লেহ্য পেয় এর সুঘ্রাণ আপনার পরিপাক তন্ত্রে গিয়া অবিরাম আঘাত হানতে থাকবে যেটা বেশি খাবার পক্ষে সহায়ক। ব্যুফে টাইম শুরু হবার সাথে সাথে বিসমিল্লাহ বলে ঝাপিয়ে পড়বেন। তা নাইলে আসল আইটেমে এ শর্ট পড়ে যাবে নিশ্চিত।

3. ব্যুফেতে কখনো স্যুপ খাবেন না দুইটা কারন-
– স্যুপটা জঘণ্য হয়
– স্যুপ আপনার ক্ষিদা অকালে ধংস করবে অত্যন্ত করুণ ভাবে

 

4. ব্যুফেতে সালাদ ই থাকে ১২-১৫ ধরনের… ২/১ টা ছাড়া বাকিগুলার ধার দিয়েও হাটবেন না।

5. ভাত, ফ্রাইড রাইস এবং নুডুলস বা পাস্তা অত্যন্ত অল্প পরিমানে চেখে দেখবেন।

 

6. সালাদের মত মেইন ফুডেও আজাইরা কিছু আইটেম থাকে ঐগুলার দিকে ফিরেও তাকাবেন না

 

7. এক ফোটাও পানি খাবেন না

8. ভুলেও লজ্জা পাবেন না, মনে রাখবেন লজ্জা পেয়েছেন তো ধরা খেয়েছেন।

9. এই পয়েন্টটা ৩/৪ নম্বরে আলোচনা করা উচিত ছিলো, যাক বেপার না। এই পয়েন্ট টা খাওয়ার আগে অবশ্যই এপ্লাই করতে হবে সেটা হইলো খাওয়া শুরু করার আগে অবশ্যই একবার পুরা আয়োজন ঘুরে দেখতে হবে। কারন দেখা গেল আজাইরা আইটেম পেটের মধ্যে ঢুকিয়ে জায়গা মেরে দিচ্ছেন পরে মজার জিনিষের জায়গা নাই।

10. পোষাক নির্বাচন: আপনার সবচেয়ে ঢিলেঢালা প্যান্টটা বের করে পরে ফেলুন। তার উপর ছেড়ে দিন টি-শার্ট। ভুলেও ইন করবেন না আর বেল্টের ব্যবহার এই ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ বর্জণীয়।

11. ভুলেও ওয়েটারদের সাথে আই কন্ট্যাক্ট না করা। অনেক ওয়েটার আছে আপনার পারফরমেন্স দেখে আগলি লুক দিতে পারে। সেটা দেখলে আবার আপনার উদ্যম কমে যেতে পারে।

12. লাস্ট বাট নট দ্যা লিস্ট যেহেতু সবার আগে গিয়েছেন সেহেতু আপনার হাতে পুরা টাইম ই আছে। তাই পুরা সময় যত্ন সহকারে ব্যয় করবেন খাওয়ার পিছনে। যখনি দেখবেন যে টান্কি পুরা ফুল তখন ৫/১০ মিনিট কাল ব্যাপী জিরিয়ে নিবেন। আর চিন্তা করিবেন যে, ১০০০ টাকা দিলাম আর কিছুই তো খাইলাম না… দেখবেন যে টাকার আফসুসে পেটের ভিতরে মিনিমাম হাফ লিটার জায়গা খালি হয়ে গেছে।

লিখেছেনঃ Arnob Sojol